ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা

1468914724616
উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য
ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষার উদ্দেশ্য হল শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ ধর্ম সম্পর্কে পরিচিতি, আচরণগত উৎকর্ষসাধন
এবং জীবন ও সমাজে নৈতিক মানসিকতা সৃষ্টি ও চরিত্র গঠন।
এই শিক্ষার উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য নিম্নরূপ :
ক্স প্রচলিত ব্যবস্থাকে গতিশীল করে যথাযথ মানসম্পন্ন ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষাদান।
ক্স প্রত্যেক ধর্মে ধর্মীয় মৌল বিষয়সমূহের সঙ্গে নৈতিকতার উপর জোর দেওয়া এবং ধর্মশিক্ষা যাতে শুধু
আনুষ্ঠানিক আচার পালনের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে চরিত্র গঠনে সহায়ক হয় সেদিকে নজর দেয়া।
কৌশল
ক. ধর্ম শিক্ষা
১। ইসলামধর্ম শিক্ষা
১. শিক্ষার্থীদের মনে আল্লাহ, রাসুল(সা:) ও আখিরাতের প্রতি অটল ঈমান ও বিশ্বাস যাতে
গড়ে ওঠে এবং তাদের শিক্ষা যেন আচার সর্বস¦ না হয়ে তাদের মধ্যে ইসলামের মর্মবাণীর
যথাযথ উপলব্ধি ঘটায় সেভাবে ইসলাম ধর্ম শিক্ষা দেওয়া হবে।
২. ইসলাম ধর্মের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে অবহিত হওয়া, ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান ও সংস্কার
স¤পর্কে জ্ঞান অর্জনের জন্য মানসম্পন্ন পাঠ্যপুস্তক প্রণয়ন করা হবে।
৩. কলেমা, নামায, রোজা, হজ্জ ও যাকাতের তাৎপর্য বর্ণনাসহ ইসলাম ধর্মের বিভিন্ন দিক
যথার্থভাবে পঠন পাঠনের ব্যবস্থা করা হবে।
৪. শিক্ষার্থীর চরিত্রে মহৎ গুণাবলি অর্জন, সৎ সাহস ও দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধকরণ এবং
শিক্ষার্থীকে সামাজিক ও জাতীয় চেতনায় নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধে উজ্জীবিত করে
গড়ে তোলা হবে।
২। হিন্দুধর্ম শিক্ষা
১. প্রকৃ তি ও পরিবেশকে জানার মধ্য দিয়ে সবকিছুর মূলে যে ঈশ্বর আছেন, ধর্মের মূল যে
ঈশ্বর, সৃষ্টিতত্ত্ব এবং হিন্দু ধর্ম স¤পর্কে প্রকৃ ত ধারণা দেওয়া হবে।
২. হিন্দু ধর্মের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে অবহিত হওয়া, ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান ও সংস্কার স¤পর্কে
জ্ঞান অর্জনের জন্য মানসম্পন্ন পাঠ্যপুস্তক প্রণয়ন করা হবে।
৩. নীতিবোধ জাগ্রত করার সহায়ক হিসেবে বিভিন্ন ধর্মগ্রন্থের গল্প-উপাখ্যান স¤পর্কে
প্রয়োজনীয় শিক্ষা দেওয়া হবে।
৪. শিক্ষার্থীর চরিত্রে মহৎ গুণাবলি অর্জন, সৎ সাহস ও দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধকরণ এবং
শিক্ষার্থীকে সামাজিক ও জাতীয় চেতনায় নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধে উজ্জীবিত করে
গড়ে তোলা হবে।
৩।বৌদ্ধধর্ম শিক্ষা
১. সিদ্ধার্থের বিভিন্ন বিদ্যা শিক্ষায় পারদর্শিতা, চার নিমিত্ত দর্শন, মার বিজয় ও অন্তিম
উপদেশের বিষয়ে পাঠদান করা হবে।
২. বৌদ্ধ ধর্মের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে অবহিত হওয়া, ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান ও সংস্কার
স¤পর্কে জ্ঞান অর্জনের জন্য মানসম্পন্ন পাঠ্যপুস্তক প্রণয়ন করা হবে। ।
৩. গৌতম বুদ্ধের সাথে স¤পর্কিত কাহিনী ও গল্পের মাধ্যমে নীতিবোধ জাগ্রত করা এবং
পার্থিব জীবনের সুখ-বিলাস, অর্থ-স¤পদ যে কিছুই সঙ্গে যাবে না, কর্মই জীবনের একমাত্র
পাথেয় গুরুত্বসহকারে সেই শিক্ষা দেওয়া হবে।
৪. শিক্ষার্থীর চরিত্রে মহৎ গুণাবলি অর্জন, সৎ সাহস ও দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধকরণ এবং
শিক্ষার্থীকে সামাজিক ও জাতীয় চেতনায় নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধে উজ্জীবিত করে
গড়ে তোলা হবে।
৪।খ্রিষ্টধর্ম শিক্ষা
১. যিশুর জীবন, কাজ ও শিক্ষার মধ্য দিয়ে জীবনের পূর্ণতা লাভের পথ ও পরামর্শ এবং
নির্দেশনা প্রদান করা হবে।
২. খ্রিষ্ট ধর্মের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে অবহিত হওয়া, ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান ও সংস্কার স¤পর্কে
জ্ঞান অর্জনের জন্য মানসম্পন্ন পাঠ্যপুস্তক প্রণয়ন করা হবে।
৩. শারীরিক, মানসিক ও আধ্যাত্মিকভাবে সুস্থ জীবন-যাপন করা এবং অন্যদের সুস্থ
আধ্যাত্মিক ও নৈতিক জীবন-যাপনে সাহায্য করতে শিক্ষার্থীকে মানসিকভাবে তৈরি করে
গড়ে তোলার জন্যে প্রয়োজনীয় শিক্ষা দেওয়া হবে।
৪. শিক্ষার্থীর চরিত্রে মহৎ গুণাবলি অর্জন, সৎ সাহস ও দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধকরণ এবং
শিক্ষার্থীকে সামাজিক ও জাতীয় চেতনায় নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধে উজ্জীবিত করে
গড়ে তোলা হবে।
৫। অন্যান্য ধর্ম
আদিবাসীসহ অন্যান্য সম্প্রদায় যারা দেশে প্রচলিত মূল চারটি ধর্ম ছাড়া অন্য কোনো ধর্মের
অনুসারী তাঁদের জন্য নিজেদের ধর্মসহ নৈতিক শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করা হবে।
খ. নৈতিক শিক্ষা
নৈতিকতার মৌলিক উৎস ধর্ম। তবে সামাজিক ও সংস্কৃ তিক বৈশিষ্ট্যসমূহ এবং দেশজ আবহও
গুরুত্বপূর্ণ উৎস। নৈতিকতা শিক্ষার ক্ষেত্রে এসকল বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে পাঠ্যপুস্তক প্রণয়ন করে নৈতিক
শিক্ষাদান পদ্ধতি নির্ধারণ করা হবে।